যেখানে পাওয়া যাবে টাইগারদের অফিশিয়াল বিশ্বকাপ জার্সি

দরজায় কড়া নাড়ছে বিশ্বকাপ। শুরু হয়ে গেছে বিশ্বজুড়ে ক্রিকেট ভক্তদের উন্মাদনা। এই উন্মাদনায় বাড়তি কিছু যোগ করে প্রিয় দলের জার্সি। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। জার্সিতো পাওয়াই যায়, কিন্তু আসল জার্সির খোঁজ দিবে কে? ভক্তদের এই প্রশ্নের উত্তর মিলাতেই আজ শনিবার হাতিরঝিলের ক্রিকেটার্স কিচেনে এক অনুষ্ঠানে প্রকাশ করা হয় জার্সি বিশ্বকাপের জার্সি পাওয়ার স্থান সমূহ। ১৯৯৯ সালে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ইংল্যান্ডে আয়োজিত ওই আসরে গ্রুপ পর্বে পাঁচটি ম্যাচে অংশ নিয়েছিল টাইগাররা।

প্রথম দুই ম্যাচে নিউজিল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হারতে হয়েছিল। তবে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে দেয়। চতুর্থ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আবারও হার। শেষ ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় নিয়ে ক্রিকেট বিশ্বকে নতুন বার্তা দিয়ে দেশে ফিরে এসেছিল বিশ্বকাপের অভিষিক্ত দলটি। সে ঘটনার দুই দশক পর ফের বিশ্বকাপের আসর বসছে ইংল্যান্ডে। আগামী ৩০ মে থেকে শুরু হচ্ছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ মঞ্চের ১২তম আসর। বিশ্বকাপকে ঘিরে চলছে পুরো দমের প্রস্তুতি। প্রিয় দলের জার্সি কেমন হবে? এ নিয়ে রয়েছে সমর্থকদের রয়েছে বাড়তি আগ্রহ। সে বিষয়টি বিবেচেনা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) বিশ্বকাপ জার্সির স্বত্ব দিয়েছিল স্পোর্ট অ্যান্ড স্পোর্টজ নামক প্রতিষ্ঠানের কাছে।

এ সময় জানানো হয়, বিশ্বকাপের এবারের আসরে বাংলাদেশে দল হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে জার্সি পরে মাঠে নামবে। হোম জার্সিটিতে রয়েছে নতুনত্ব। রং মূলত সবুজই থাকছে। তবে অ্যাওয়ে জার্সিটিতে ১৯৯৯ বিশ্বকাপের জার্সির ছোঁয়া থাকছে। তবে এর রং হবে লাল। ২০ বছর আগের ওই জার্সিটি সবুজের রংয়ের ছিল। বুকে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের মতো ডোরাকাটা ছিল জার্সিটিতে।
স্পোর্ট অ্যান্ড স্পোর্টজের কর্ণধার মেহতাবউদ্দিন আনোয়ার আহমেদ সেন্টু বলেন, বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকা ও পাকিস্তানের জার্সিও সবুজ। এই দুই দলের বিপক্ষে অ্যাওয়ে জার্সি পরে নামবে টাইগাররা।

এবারের বিশ্বকাপে মাশরাফি বিন মুর্তজা নেতৃত্বাধীন দলটির প্রথম প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। আগামী ২ জুন ওভালে সাকিব-তামিমদের বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু হবে। ৫ জুলাই লর্ডসে পাকিস্তানের বিপক্ষে নামবে স্টিভ রোডসের শিষ্যরা। এই দুই ম্যাচে ১৯৯৯ বিশ্বকাপের আদলে তৈরি জার্সিতে দেখা যাবে টাইগার বাহীনিকে। অফিসিয়াল জার্সি ক্রেতা সাধারণের ক্রয় ক্ষমতায় রাখতে দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১১৫০ টাকা (ভাট+ট্যাক্সসহ)। হোম অ্যাওয়ে জার্সি ছাড়াও প্র্যাকটিস কিট ও ক্যাপ বিক্রয় করবে প্রতিষ্ঠানটি।

জার্সি কোথায় পাওয়া যাবে?
দেশের দুই শীর্ষ ব্র্যান্ড অঞ্জনস ও জেন্টাল পার্কের প্রায় শতাধিক শো-রুমে মিলবে বাংলাদেশের জার্সি। ক্রেতা সাধারণের জন্য অনলাইন স্টোর থেকেও থাকছে পছন্দের জার্সি কেনার সুযোগ। ক্রিকশপ বিডি ও জার্সি ফ্রিক বিডি এই দুই অনলাইন প্রতিষ্ঠান তাদের বিভিন্ন প্ল্যাট ফর্মের মাধ্যমে বিক্রি করবে জার্সি। এক্সক্লুসিব পার্টনার ডিমানি অ্যাপের মাধ্যমে জার্সি কিনতে পারবেন ক্রেতারা। এছাড়া সারা দেশে অনলাইনের মাধ্যমে জার্সি বিক্রয় করবে রবিন স্পোর্টস।

পাঠকের মতামত