মাদক ব্যবসায়ীকে সহযোগিতা, জেল হলো টিয়া পাখির!

টিয়া পাখির বুদ্ধিমত্তা ও কথা বলার ক্ষমতা কাজে লাগিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছিল একদল কোকেন কারবারি চক্র। প্রশিক্ষিত টিয়া পাখিটিসহ ওই চক্রের সদস্য এক যুবক ও তরুণীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সম্প্রতি এমন একটি ঘটনা ঘটেছে ব্রাজিলের পিয়াউই প্রদেশে, যা নিয়ে রীতিমতো চমকে গেছেন স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা।

দেশটির সংবাদমাধ্যম থেকে জানা গেছে, এক দল কোকেন ব্যবসায়ীর সন্ধান পায় পুলিশ। ওই চক্রের মাফিয়া তার জানালাহীন বাড়ির সামনে একটি পোষা টিয়া পাখি রেখে দিতেন। বাড়িতে অভিযানে গেলেই পাখিটি বলে উঠত, ‘মামেয় পুলিশিয়া’। এ বাড়িতে ‘পুলিশ এসেছে’ এ সংকেত পেয়েই মাদক ব্যবসায়ী চক্রের লোকজন পালিয়ে যেত। দীর্ঘদিন ধরে এভাবেই মাদক ব্যবসা করে আসছিল চক্রটি। সম্প্রতি এক অভিযান চালালে টিয়া পাখিটি একই ধরনের পূর্ব সংকেত দিলেও এবার বাড়িটি থেকে এক যুবক ও এক তরুণীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। তাদের সঙ্গে টিয়া পাখিটিকেও আটক করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘এ কাজের জন্য টিয়া পাখিটিকে দীর্ঘ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছিল। পাখিটি বাড়িতে পুলিশের উপস্থিতি টের পেলেই চিৎকার শুরু করত আর মাদক কারবারিরা এ সংকেত পেয়েই পালিয়ে যেত।’ সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো, আটক করে থানায় আনার পর থেকে কোনো কথা কিংবা শব্দ পর্যন্ত করেনি টিয়া পাখিটি। সারাক্ষণই চুপ করে বসে ছিল। টিয়াকে আপাতত একটি চিড়িয়াখানায় রাখা হয়েছে।

পাঠকের মতামত