বিয়েতে রাজি না প্রেমিক, তাই আত্মহত্যা করলো প্রেমিকা

কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরবে বিয়েতে প্রেমিকের অস্বীকৃতি এবং লোকনিন্দা সহ্য করতে না পেরে তানিয়া বেগম (২৩) নামে এক অনার্স পড়ুয়া তরুণী আত্মহত্যা করেছেন। শনিবার (২৭ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে নিজ ঘরের আড়ের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।তানিয়া উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়নের মধ্যেরচর মীরবাড়ির মিলন মীরের কন্যা। তিনি স্থানীয় জিল্লুর রহমান সরকারি মহিলা অনার্স কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, তানিয়ার আগে বিয়ে হয়েছিল এবং একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ার পর স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। তানিয়া পড়াশোনার পাশাপাশি একটি বেসরকারি হাসপাতালে চাকুরি করতেন। সেখানকার ফার্মেসীতে চাকুরি করতেন উপজেলার শ্রীনগর ইউনিয়নের শ্রীনগর গ্রামের আবুল কালামের ছেলে মিজানুর রহমান। একই প্রতিষ্ঠানে চাকুরির সুবাধে তানিয়া-মিজানের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গত বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) রাতে প্রেমিক মিজানুর রহমান প্রেমিকা তানিয়ার সাথে দেখা করতে তাদের বাড়িতে যায়। বিষয়টি প্রতিবেশীদের নজরে পড়লে তারা মিজানকে আটক করেন। পরদিন শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সকালে মিজানের অভিভাবকদের সাথে নিয়ে সালিশে বসেন প্রতিবেশীরা। এসময় তানিয়ার অভিভাবকরা তানিয়াকে বিয়ে করতে চাপ সৃষ্টি করলে তাতে অস্বীকৃতি জানায় মিজান। এ সময় স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে কৌশলে মিজানকে ছাড়িয়ে দেন ঘটনাস্থলের কয়েকজন।

পরে এলাকার কিছু বখাটে যুবক শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) দিনে এবং রাতভর তানিয়াসহ পরিবারের লোকজনকে নানাভাবে অপমান করে। অশ্লীল বাক্য এবং ঘরে ইটপাটকেল ছুঁড়ে এক ভীতিকর পরিবেশ তৈরি করে। ফের শনিবার (২৭ এপ্রিল) সকালে বাড়িতে গিয়ে নানা রকমের অশ্লীল কথা-বার্তা বলতে থাকে এবং তানিয়া এবং ওর মা শেফালি বেগমকে ঘর থেকে টেনে বের করে আনার চেষ্টা করে।

এইসব অপমান সহ্য করতে না পেরে শনিবার (২৭ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে তানিয়া নিজঘরে আত্মহত্যা করেন। পরে খবর পেয়ে দুপুর দুইটার দিকে ভৈরব থেকে পুলিশ গিয়ে লাশ নামিয়ে থানায় নিয়ে যায়। তানিয়ার মা শেফালি বেগম অভিযুক্ত কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে প্রলাপ বকছিলেন এবং বার বার মূর্চ্ছা যাচ্ছিলেন। তিনি এ সময় প্রতারক প্রেমিক মিজান এবং প্রতিবেশী বখাটেদের বিচার দাবি করেন।

ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ কিশোরগঞ্জে প্রেরণ করা হবে। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে এ ঘটনায় কারো সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পাঠকের মতামত