‘মুশফিক না হয় মাহমুদউল্লাহ আমাদের নামাজের ইমাম থাকেন’ (ভিডিও)

দ্বিতীয়বারের মতো জাতীয় হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে আহলুল হুফফাজ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। ২৭ এপ্রিল বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে কুরআন পাঠ করতে দেখা যায় মাশরাফি বিন মুর্তজার মেয়ে হুমায়রা মুর্তজাকে।
পবিত্র কুরআনুল কারিমের ৯৩ নম্বর সুরা ‘সুরা আদ-দোহা’ তিলাওয়াত করে ছোট্ট হুমায়রা। হুমায়রার তিলাওয়াতে মুগ্ধ হয়ে সঙ্গে সঙ্গে তার জন্য পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেন আহলুল হুফফাজ ফাউন্ডেশনের সভাপতি। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাশরাফি ও তার স্ত্রী সুমনা হক সুমিও।

অনুষ্ঠানের শেষ দিকে মঞ্চে উঠেন মাশরাফি। জানান, দ্বিতীয়বারের মতো এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে মুগ্ধ বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের এই অধিনায়ক। একই সঙ্গে হাফেজদের প্রশংসায় ভাসান। শুধু তাই নয়। জাতীয় ক্রিকেট দলের মুসলিম ক্রিকেটারদের নামাজ পড়ার প্রসঙ্গও তুলে ধরেন তিনি। মাশরাফি জানান, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সবাই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে থাকে। বিদেশ সফরে তারা জামাতে নামাজ পড়েন। আর সেখানে ইমামের দায়িত্ব পালন করে থাকেন মুশফিকুর রহিম অথবা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

মাশরাফির ভাষ্য, ‘আমাদের দেশের অনেক হাফেজ বিদেশে যেয়ে সম্মান বয়ে আনছে। আমাদের সবাই চেনে। আমরা কোথাও চ্যাম্পিয়ন হতে পারিনি। অথচ ফেসবুকে-টুইটারে আমাদের চ্যাম্পিয়ন বানিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু আজকে আমাদের দেশের হাফেজরা বিদেশে গিয়ে চ্যাম্পিয়ন বা রানার্সআপ হয়ে আসছে। এটা আমদের জন্য অনেক গর্বের ব্যাপার। আমি আশা করি সবাই হাফেজদের সম্মান দিবে।’

‘আর একটা কথা বলতে চাই আমাদের ক্রিকেট টিমে যারা আছে (মুসলিম)। আমাদের সবাই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি এবং সবাই প্রায় ওমরাহ করে ফেলেছি। শুধু তাই নয়। আমরা যখন বিদেশে থাকি তখন আমাদের ইমাম সাহেব থাকে মুশফিক কিংবা মাহমুদউল্লাহ। আমরা সবাই সেখানে জামাতে নামাজ আদায় করি। এবং আমাদের বোর্ড থেকে একটি রুম আলাদা করে দেওয়া থাকে যাতে আমরা নামাজ পড়তে পারি। আমাদের জন্য দোয়া করবেন। বিশ্বকাপে যেন ভালো কিছু করতে পারি এবং দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনতে পারি,’ যোগ করেন মাশরাফি।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সবাই ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে।ইমাম থাকে হয় মুশফিক নইলে মাহমুদুল্লাহ।আলহামদুলিল্লাহ❤

Posted by Hassibul Hossain Shakil on Sunday, April 28, 2019

পাঠকের মতামত