সেঞ্চুরি করেও স্বার্থপর তকমা পেল হাশিম আমলা

পাকিস্তানের বিপক্ষে পাঁচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৫ উইকেটে হেরেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। আর এই ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন হাশিম আমলা! আমলার অপরাজিত ১০৮ রান বেশ কয়েকটি রেকর্ডে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ভূমিকা রেখেছে। এই সেঞ্চুরির মাধ্যমে তিনি বিরাট কোহলির একটি রেকর্ড টপকে গেছেন। ২৭ সেঞ্চুরিতে কোহলির যেখানে ১৬৯ ইনিংস প্রয়োজন হয়েছিল সেখানে আমলার সাতাশতম সেঞ্চুরি এসেছে ২ ইনিংস কম খেলে। ওয়ানডেতে দ্রুততম ২৭ সেঞ্চুরির রেকর্ড এখন আমলার।

কিন্তু এই রেকর্ড গড়ার সঙ্গে আমলা দলকে উপহার দিয়েছেন লজ্জার রেকর্ডও। দ্বিতীয় উইকেটে হি ফন ডার ডুসেনের সঙ্গে ১৫৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েছেন এই প্রোটিয়া ওপেনার। এমন মজবুত ভিত থেকে দলীয় সংগ্রহ তিন শ ছাড়িয়ে যেতে পারত দক্ষিণ আফ্রিকা। ৩৫ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর ১ উইকেতে ১৬০ রান, সেখান থেকে ৫০ ওভার শেষে ২ উইকেটে মাত্র ২৬৬!

এ জন্য আমলার ১২০ বলের ‘বিনয়ী’ ইনিংসকে কাঠগড়ায় তুলেছেন বিশ্লেষকেরা। যে ইনিংসে ছক্কা মাত্র ১টি ও ৭ চার। আমলার আমলাতান্ত্রিক ব্যাটিং জটিলতায় (!) শেষ ১৫ ওভারে মাত্র ১০৬ রান তুলতে পেরেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

বেশ কিছুদিন ধরেই বড় রানের দেখা পাচ্ছিলেন না আমলা। ওয়ানডেতে ১২ ইনিংস পর তিনি সেঞ্চুরির দেখা পেলেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশির ভাগ ক্রিকেটপ্রেমীর মতে, সেঞ্চুরির দেখা পেতেই মন্থর গতিতে ব্যাট করেছেন আমলা।

তাঁর ‘স্বার্থপর’ ইনিংস হার ছাড়া আর কিছুই দিতে পারেনি বলেও মনে করছে সংবাদমাধ্যম। প্রোটিয়া অধিনায়ক এ নিয়ে ফাফ ডু প্লেসি সরাসরি না বললেও হারের পর বুঝিয়ে দেন যে স্কোরবোর্ডে রান কম উঠেছে। ‘ওরা দারুণ ব্যাট করেছে। তবে ১৫ থেকে ২০ রান সম্ভবত কম হয়েছে, যা আরেকটু চালিয়ে খেললে তুলে নেওয়া যেত।’

পাঠকের মতামত