ক্ষমা চাই; সব দোষ আমার : করণ জোহর

হার্দিক পাণ্ডিয়া- লোকেশ রাহুলকে নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই উত্তাল হয়ে আছে ক্রিকেটাঙ্গণ। কিন্তু যে টিভি শোতে গিয়ে নারীবিদ্বেষী মন্তব্য করেছিলেন এই দুই ক্রিকেটার, সেই শোয়ের উপস্থাপক করণ জোহর এতদিন মুখে কুলুপ এঁটে ছিলেন। অবশেষে মুখ খুললেন তিনি। ওই অঘটনের পুরো দায় নিজের ঘাড়ে নিয়ে করণ বলেছেন, ‘এই ঘটনার জন্য আমার নিজেকে দায়ী বলে মনে হচ্ছে। আমার শোতে ঘটনাটা ঘটেছে। আমি ক্ষমা চাইছি।’

করণের শো ‘কফি উইথ করণ’ এ নারীবিদ্বেষী মন্তব্যের জন্য প্রায় সব মহল থেকেই কথা শুনতে হচ্ছিল হার্দিক পাণ্ডিয়া এবং লোকেশ রাহুলকে। জল এত দূর গড়ায় যে, ক্রিকেট থেকে বলিউড- অঙ্গনেই তীব্র সমালোচনার সৃষ্টি হয়। প্রশ্ন উঠতে শুরু করে করণ জোহরের ভূমিকা নিয়েও। নিজের টক শোতে গেস্টদের ডেকে এই ধরনের প্রশ্ন তিনিই বা কেন করলেন? বলিউডের বেশ কিছু তারকা এই প্রশ্নও তুলছিলেন।

অতঃপর করণ জোহর একটি সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার নিজেকে ভীষণ অপরাধী মনে হচ্ছে। কারণ আমার শো। আমার প্ল্যাটফর্ম। আমি তাদের অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম। সেখানে ভুল-ত্রুটি যাই হোক, তার দায়ও আমার। রাতের পর রাত ঘুমোতে পারিনি, শুধু এটা ভেবে যে, ওদের এই অপরিসীম ক্ষতি আমি পূরণ করব কী করে? কিন্তু এখন আমার কথা কে শুনবে? জল বহু দূর গড়িয়েছে। এখন সব কিছুই আয়ত্তের বাইরে।’

যৌনতা বিষয়ক যেসব প্রশ্ন হার্দিক-রাহুলকে করেছেন, সেসব প্রশ্ন যে নারীদেরকেও করেন, সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে ৪৬ বছর বয়সী করণ জোহর বলেন, ‘একই প্রশ্ন আমি দীপিকা পাড়ুকোন এবং আলিয়া ভাটকেও করেছিলাম। কিন্তু তাদের জবাবে তো আর আমার কোনো নিয়ন্ত্রণ থাকে না।’

তবে তার এই টক শো যে নারীরাই নিয়ন্ত্রণ করেন সে বিষয়ও বলেছেন করণ। এমনকি তাদের কাছ থেকে যে কখনও কোনও অভিযোগ আসেনি সেটাও বলেছেন তিনি। কিন্তু হার্দিক-রাহুলকে নিয়ে যা হলো, সে বিষয়ে অনুতপ্ত করণ, ‘ওদের সঙ্গে যা ঘটে গেল তার জন্য আমি সত্যিই অনুতপ্ত। এই প্রশ্নও উঠেছে, আমি নাকি টিআরপির জন্য এ সব করে থাকি। আমি টিআরপি নিয়ে এক্কেবারেই চিন্তিত নই।আমি ক্ষমা চাইছি। কারণ ঘটনাটা আমার প্ল্যাটফর্মেই ঘটেছে। ছেলে দুটো ইতিমধ্যেই তার মূল্য চুকিয়ে দিয়েছে।’

পাঠকের মতামত