খালেদার কারাবাসের ১ বছর, সারাদেশে কঠোর কর্মসূচি দিচ্ছে বিএনপি

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাবাসের এক বছর পূর্ণ হবে। গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাজা পেয়ে তাকে জেলে যেতে হয়। দিনটিকে কেন্দ্র করে সারাদেশে কর্মসূচি দেবে বিএনপি। এর পাশাপাশি এদিন খালেদা জিয়ার সঙ্গে জেলখানায় সাক্ষাৎ করতে পারেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানিয়েছে, এ মাসের শেষের দিকে ড. কামাল হোসেন দেশে ফিরে এলে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সম্ভাব্য সাক্ষাতের বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করবে ৫ দলীয় এই রাজনৈতিক জোট। ফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে এ বিষয়ে তাদের ইতিবাচক মনোভাবের আভাস পাওয়া গেছে।

বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার কারাবাসের বছরপূর্তিতে অবশ্যই কর্মসূচি থাকবে। এ কর্মসূচির স্থায়িত্ব হতে পারে ২ থেকে ৩ দিন পর্যন্ত। কর্মসূচির মধ্যে থাকবে বিক্ষোভ, অনশন, দোয়া মাহফিল এবং জেলখানায় গিয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করা। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) জ্যেষ্ঠ নেতাদের পাশাপাশি আইনজীবীদেরও বৈঠক হবে। ওই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হবে কী ধরনের কর্মসূচি দেওয়া হবে।

বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, খালেদা জিয়ার কারাবরণের বছরপূর্তি ও তার মুক্তির দাবিতে লিফলেট ও পোস্টার করবে বিএনপি। এছাড়া ২০ দলীয় জোটের ব্যানারে ভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও জানা গেছে সংশ্লিষ্ট সূত্রে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে সাজাভোগ করছেন বেগম জিয়া। তার কারাবরণের এক বছর উপলক্ষে কী কর্মসূচি দেবো, তা এখনও ঠিক হয় নাই। বৃহস্পতিবার আমাদের বৈঠক আছে, সেখানে ঠিক হবে।’

‘অবশ্যই ম্যাডামের কারাবরণের এক বছর উপলক্ষে কর্মসূচি থাকবে’, বলেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘দলের নেতাকর্মীরা, সমর্থকরা তার মুক্তির বিষয়টিকে এখন প্রাধান্য দেবে। আমরা তার অন্যায়ভাবে জেলভোগ করার প্রতিবাদ জানাই।’সুত্র: বাংলা ট্রিবিউন

পাঠকের মতামত