এমপির হুঁশিয়ারিতে বদলে গেল হাসপাতালের চিত্র

দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসকরা গণহারে অনুপস্থিত থাকলেও কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া হাসপাতালটি এক দিক থেকে ব্যতিক্রম। চিকিৎসকদের এখানে ফাঁকি দেওয়ার প্রবণতা কম।
তবে এই চিত্র আনতে বেশ কাঠখর পোড়াতে হয়েছে। হাসপাতালে এসে ডাক্তার না পেলে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি ছিল নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদের।

ঘোষণা মতোই আগে থেকে না জানিয়ে বৃহস্পতিবার হাসপাতালটি পরিদর্শনে যান কিশোরগঞ্জ-২ (পাকুন্দিয়া-কটিয়াদী) আসনের সংসদ সদস্য। গিয়ে পরিবেশ দেখে তিনি সন্তোষও প্রকাশ করেন।

দিন পনেরো আগে পাকুন্দিয়া উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় নুর মোহাম্মদ বলেছিলেন, যেসব চিকিৎসক অনুপস্থিত থাকবেন বা এখানে কর্মরত না থেকে বেতন তুলবেন, তাদের বেতন বন্ধ করে দেওয়া হবে। আর এতেই বদলে যায় হাসপাতালের দৃশ্যপট।

হাসপাতালটি ঘুরে দেখে নুর মোহাম্মদ কথা বলেন চিকিৎসা নিতে আসা এলাকাবাসীর সঙ্গে। জানতে চান তাদের অভিযোগ আছে কি না, এখানে ডাক্তার বসেন কি না।

আলোচনা কথা বলেন চিকিৎসকদের সঙ্গেও। অবকাঠামোগত সমস্যা বা সংকটের ব্যাপারে খোলামেলা কথা বলেন। দেন সমস্যা সমাধানের আশ্বাস।

পুরুষ ও মহিলা ওয়ার্ডের পাশাপাশি স্টোর রুম, রক্ত পরীক্ষাসহ পুরো হাসপাতাল ঘুরে দেখেন সংসদ সদস্য। বাদ যায় না রান্নাঘরও।

সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর এ হাসপাতালে এটাই তার প্রথম আসা। প্রান্তিক পর্যায়ে চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দিতে ও সর্বোচ্চ সেবা দিতে সংশ্লিষ্টদের আরও আন্তরিক হওয়ারও পরামর্শ দেন।

পাঠকের মতামত