পর্ণ বা বি গ্রেড ফিল্মেও কাজ করেছেন ক্যাটরিনা

বলিউড সিনেমা যেমন সকলের মনোরঞ্জনের সামগ্রী, তেমনই বলিউড তারকাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও কৌতূহল কম নেই বলিউড ভক্তদের। আজ বলিউডের ১০টি সত্য ঘটনা নিয়ে আমাদের এই আয়োজন। যা জানলে বলিউড সম্পর্কে আপনার ধারণা বদলে যেতে পারে-

১. অনেক নামকরা বলিউড তারকাই কিন্তু বেশ কিছু সফট পর্ণ বা বি গ্রেড ফিল্মে অভিনয় করেছেন। উদাহরণস্বরূপ, অমিতাভ বচ্চন ও ক্যাটরিনা কাইফ অভিনীত ‘বুম’, অক্ষয় কুমার অভিনীক ‘মিস্টার বন্ড’, শাহরুখ খান অভিনীত ‘মায়া মেমসাব’।

২. প্রেমে প্রতারণার ক্ষেত্রে বলিউড তারকাদের জুড়ি মেলা ভার। রাজ কপূরের দ্বারা প্রতারিত হয়েছিলেন নার্গিস, অমিতাভ প্রতারণা করেছিলেন রেখাকে, দিলীপ কুমার আসমাকে প্রেমে ধোকা দিয়েছিলেন, ধর্মেন্দ্রও এক সময়ে হেমা মালিনীকে ঠকিয়েছিলেন প্রেমে। বলিউডের অন্দরমহলে কান পাতলে শোনা যায় এমন সব প্রতারণার কাহিনি।

৩. বলিউড মুখে যতই উদার হোক না কেন, বর্ণবৈষম্য এখানে ভাল ভাবেই বাসা বেঁধে রয়েছে। স্মিতা পাতিল থেকে শুরু করে নন্দিতা দাস, কঙ্কনা সেনশর্মা পর্যন্ত অনেকেই তাঁদের কালো গাত্রবর্ণের জন্য বাঁকা নজরের শিকার হয়েছেন।

৪. মাদক সেবনের অভ্যাস রয়েছে অনেক বলিউড তারকারই। সঞ্জয় দত্তের মতো তারকাদের মাদকাসক্তির কথা তো কমবেশি সকলেই জানেন, পাশাপাশি রণবীর সিং বা রণবীর কাপূরের মতো স্টারও কিন্তু বিভিন্ন সময়ে স্বীকার করেছেন যে, তাঁরা জীবনে কখনও না কখনও মাদক সেবন করেছেন।

৫. বলিউড তারকাদের অনেকেই কিন্তু বিভিন্ন সময়ে মানসিক অবসাদ কিংবা মানসিক রোগের শিকার হয়েছেন। যেমন, পরভীন বাবি আমেরিকার একটি মানসিক হাসপাতালে দীর্ঘ সময় কাটিয়েছিলেন। পরে মু্ম্বইয়ে রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হয় তাঁর।

৬. বলিউড স্টারদের অনেকেই কিন্তু অত্যন্ত অল্প বয়সে কৌমার্য হারিয়েছেন। রণবীর সিং ১২ বছর বয়সে, আর রণবীর কাপূর ১৫ বছর বয়সে কৌমার্য হারিয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন তাঁরা নিজেরাই।

৭. বলিউডের অনেকেই কিন্তু পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়েছেন। ধর্মেন্দ্র বা গোবিন্দের মতো স্টাররা নিজেরাই নিজেদের পরকীয়া সম্পর্কের কথা জানিয়েছেন বিভিন্ন সময়ে।

৮. বলিউডের সঙ্গে আন্ডারওয়ার্ল্ডের মাখামাখি মাঝেমধ্যে বেশ প্রকট হয়ে উঠেছে। মন্দাকিনী বা মমতা কুলকার্নির মতো নায়িকারা হয় আন্ডারওয়ার্ল্ড ডনদের ঘরণী হয়েছেন, অথবা তাঁদের সঙ্গে প্রেমসম্পর্কে জড়িয়েছেন বলে শোনা গিয়েছে।

৯. অনেক সময়ে আবার অন্ধকার জগতের আক্রমণের শিকারও হয়েছেন বলিউড স্টাররা। ২০০১ সালে রাকেশ রোশনকে দুই আততায়ীর বন্ধুকের গুলিতে গুরুতর জখম হন। রাকেশের ড্রাইভার তাঁকে তড়িঘড়ি হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁর প্রাণ বেঁচে যায়।

১০. কাস্টিং কাউচের অভিযোগ বার বার উঠেছে বলিউড মহলে। রণবীর সিং, আয়ুষ্মান খুরানা, ক‌ঙ্গনা রনৌত, রাধিকা আপ্তে, কালকি কোয়েকলিন জানিয়েছেন, কী ভাবে ফিল্মে কাজ দেওয়ার বিনিময়ে অশোভন দাবি করা হয়েছিল তাঁদের কাছে।

পাঠকের মতামত