বিপিএল ব্যর্থতায় ভরা গেইল, এবারো ফিরলেন মাথা নিচু করেই

রাজশাহীর দেয়া ১৪২ রানে টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে হোচট খেল রংপুর। রাজশাহীর অধিনায়ক বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে সৌম্যে হাতে ধরা পড়েন। আর এর মাধ্যেমে আবার ব্যর্থ হলেন। গেইল। এবারের বিপিএল যেন ব্যর্থতায় ভরা গেইলের। ১৪ বলে ১০ রান করে মাথা নিচু করে ফিরে গেলে তিনি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রংপুরের সংগ্রহ ৪ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ২২ রান।

এর আগে চলছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বিপিএল ষষ্ঠ আসরের খেলা। আজ মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হয় রংপুর রাইডার্স ও রাজশাহী কিংস। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় দুপুর ০৬টা ৩০ মিনিটে শুরু হয় ম্যাচটি।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজশাহী কিংস। এদিকে রাজশাহী কিংসের একাদশে এসেছে এক পরিবর্তন। অন্যদিকে কোন পরিবর্তন না নিয়ে আগের শক্তিশালী একাদশ নিয়েই মাঠে নেমেছে রংপুর রাইডার্স। ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো শুরু করলেও দ্রুত উইকেট হারায় রাজশাহী। দলের সবচেয়ে ভরসার প্রতীক জনসন চালর্সকে শুরুতে ফিরিয়ে দেন ফরহাদ রেজা। মাশরাফির হাতে ধরা পড়ে ১১ বলে ১২ রান করে ফিরে যান তিনি।

এরপর নাহিদুলের আঘাত। মমিনুল হককে সরাসরি বোল্ট করেন তিনি। ২ বলে মাত্র ৪ রান করেন মমিনুল। প্রায় ম্যাচ ব্যর্থ হওয়া সৌম্য কিছুটা রানের চাকা সচল রাখলেও শহিদুল ইসলামের বলে রুশো হাতে ধরা পড়ে ফিরে যান। ১৬ বলে ১৪ রান করেন। সৌম্য আউট হলে দ্রুতই ফিরে যান অধিনায়ক মিরাজ। ৪ বলে ৬ রান করে অপুর বলে মিরাজ ফিরে গেলে বিপর্যয়ে পড়ে রাজশাহী। তবে বিপর্যয় থেকে কিছুটা হলেও টেনে তোলা চেষ্টা করেন লরি ইভান্স। কিন্তু ৩১ বলে ৩৫ রান করে তিনিও শাহিদুলের বলে ফিরে যান। এরপর আবারও অপুর আঘাত। ক্রিশ্চিয়ান জঙ্কারকে ১১ বলে ১৬ রান করার পর ফিরিয়ে দেন তিনি।

শেষ দিকে ফজলে মাহমুদ ও কায়েস আহমেদ দলের রানকে কিছুটা সচল করার চেষ্টা করেন। ফজলে মাহমুদ ২৪ বলে ১৮ রান করে রেজার বলে ফিরে যান। রেজার পরের বলেই ফিরে যান কায়েস। ২০ বলে ২২ রান করে ফিরে যান কায়েস। সানি করেন ১ বলে ১ রান। মোস্তাফিজ করেন ১ বলে ৪ রান। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে উইকেট ৮ হারিয়ে ১৪১ রান করে রাজশাহী। আর রংপুরকে জিততে হলে ২০ ওভারে ১৪২ রান করতে হবে।

পাঠকের মতামত