প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে আন্ডারকাভার অপারেশন করবে র‌্যাব

এসএসসি পরীক্ষা সামনে রেখে প্রশ্নফাঁস রোধে গোয়েন্দা নজরদারির পাশাপাশি সাইবার পেট্রলিং ও আন্ডারকাভার অপারেশন চলমান রয়েছে। প্রশ্নফাঁসের মতো অপকর্ম করে পার পাওয়া খুব কঠিন হবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন র‌্যাবে মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ।

বুধবার রাজধানীর কারওয়ানবাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আগামী ২ ফেব্রুয়ারি শুরু হতে যাওয়া এসএসসি পরীক্ষায় যাতে কোনোভাবেই প্রশ্নফাঁস কিংবা ভুয়া প্রশ্ন ছড়াতে না পারে, সে জন্য সাইবার দুনিয়ায় নজরদারি শুরু করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, প্রশ্নফাঁস রোধে ইতোমধ্যে গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করেছে র‌্যাব। সাইবার পেট্রলিং চলছে, চালানো হবে আন্ডারকাভার অপারেশন। ইতিমধ্যে র‌্যাব কার্যক্রম শুরু করেছে। দুয়েক দিনের মধ্যে ফল পাবেন আপনারা।

তিনি বলেন, এসএসসি পরীক্ষার্থীর অভিভাবকদের উদ্দেশে বলব— আপনারা প্রশ্নপত্রের পেছনে দৌড়াদৌড়ি করবেন না। শিক্ষকদের উদ্দেশে বলছি- আপনারা এ ধরনের কাজের সঙ্গে যুক্ত হবেন না। শিক্ষার্থীদের বলছি- কেউ যদি এ ধরনের কোনো কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাক, তা হলে তাদের আমরা গ্রেফতার করব। শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার করলে তাদের শিক্ষাজীবন বিনষ্ট হয়ে যাবে, আমরা এমনটি করতে চাই না। তাই তাদের এসব থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।

শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, গত বছর কয়েকজন শিক্ষককে এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছিল, তাদের আমরা শিক্ষক প্রতিনিধি বলে মনে করি না। আশা করব— এ ধরনের অপকর্মে শিক্ষকরা জড়িত থাকবেন না।

র‌্যাব প্রধান বলেন, র‌্যাব নিজস্ব গোয়েন্দা সংস্থার পাশাপাশি অন্য গোয়েন্দা সংস্থার সমন্বয়ে তথ্য সংগ্রহ করে তৎপর রয়েছে। প্রত্যেকটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মনিটরিংয়ে র‌্যাবের সক্ষমতা রয়েছে। ২/১ দিনের মধ্যে ফলাফল পাবেন আপনারা।

র‌্যাব সদস্যরা প্রতিটি পরীক্ষা হলে পরিদর্শন করবেন। অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলবেন। তাদের কাছে কোনো তথ্য থাকলে সেগুলো নিয়ে কাজ করবেন বলে জানান বেনজীর আহমেদ।

তিনি বলেন, কোচিং সেন্টার বন্ধ রয়েছে। এর পরও শহরের অলিগলিতে কোচিং বন্ধ রেখেও কেউ অপকর্ম করে কিনা, র‌্যাবের নজরদারি থাকবে। আমরা ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে যাব এবং ব্যবস্থা নেব।

আগামী ২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষা। ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ পরীক্ষা চলবে। আর ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে ব্যবহারিক পরীক্ষা।

পাঠকের মতামত